নিজস্ব প্রতিনিধিঃ

আওয়ামী লীগ দলীয় সংসদ সদস্য হাবিবুর রহমান মোল্লা মারা যাওয়ায় ঢাকা-০৫ সংসদীয় আসন সম্প্রতি শূন্য ঘোষণা করেছে সংসদ সচিবালয়। এরপর থেকেই এই আসনের উপ-নির্বাচন মাথায় নিয়ে কাজ করে যাচ্ছেন প্রায় ডজন খানেক পদপ্রত্যাশী আওয়ামীলীগ নেতা। তবে জনপ্রিয়তার নিরিখে এখন পর্যন্ত আলোচনার শীর্ষে রয়েছেন বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভাপতি কামরুল হাসান রিপন।

ইতোমধ্যেই নানা রকম সমাজসেবামূলক কার্যক্রমের মাধ্যমে এই আসনের সর্বশ্রেনীর মানুষের মনে জায়গা করে নিয়েছেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাবেক সফল এই সভাপতি। ঢাকা-০৫ আসনে সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায় সর্বস্তরের মানুষের কাছে তার ব্যাপক গ্রহণযোগ্যতা। শুধু তাই নয়, ঢাকা-০৫ আসনের প্রায় প্রতিটি অঞ্চলেই দেখা যায় কামরুল হাসান রিপনের ব্যানার, পোস্টার ও বিলবোর্ড। সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায় যাত্রাবাড়ি, কদমতলী এবং ডেমরা থানার প্রতিটি অলিগলিতেই কামরুল হাসান রিপনের ব্যানার-পোস্টার ও বিলবোর্ড টানিয়ে রেখেছেনে ঢাকা-০৫ আসনের সর্বস্তরের জনগন।

দোলাইপার, সায়েদাবাদ, যাত্রাবাড়ী, শনির আখড়া, কদমতলী, মাতুয়াইল,রায়েরবাগ, কোনাপাড়া এবং ডেমরা রোডে চোখে পড়ে বিশাল আকারের বিলবোর্ড। এছাড়াও যাত্রাবাড়ী, কদমতলী এবং ডেমরা থানার প্রতিটি অলি-গলির মোড়েই টানানো রয়েছে ব্যানার এবং ফেস্টুন এবং কামরুল হাসান রিপনের ছবিসংবলিত পোস্টার।

গত ৬ মে বার্ধক্যজনিত কারণে হাবিবুর রহমান মোল্লা মারা যান। ফলে ওইদিন আসনটি শূন্য হয়েছে বলে এরই মধ্যে গেজেট প্রকাশ করেছে জাতীয় সংসদ সচিবালয়। এরপর থেকেই দেখা যায় কামরুল হাসান রিপনের এসব ব্যানার, ফেস্টুন এবং পোস্টার। ব্যানার, ফেস্টুন, পোস্টার এবং বিলবোর্ডে ঢাকা-০৫ আসনের সর্বস্তরের জনগণের পক্ষ থেকে কামরুল হাসান রিপনকে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকার প্রার্থী হিসেবে দেখতে চান।

অত্র এলাকার জনসাধারণের দাবী কামরুল হাসান রিপন ছাত্রজীবন থেকেই সৎ, মেধাবী এবং পরিশ্রমী। দনিয়া কলেজ, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ এবং বাংলাদেশ ছাত্রলীগে তার ভূমিকা ছিল খুবই গুরুত্বপূর্ণ। দুঃসময়ে দলের জন্য নিজেকে বিলিয়ে দিয়েছেন। রাজপথে আন্দোলন-সংগ্রামে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়েছেন তিনি। এই করোনার ক্রান্তিকালেও নিজেকে উজার করে ঢাকা-০৫ আসনের মানুষের পাশে থেকে সার্বক্ষণিক সেবা দিয়ে যাচ্ছেন। তার মতো সৎ, সাহসী, পরিশ্রমী এবং মানবিক নেতাই ঢাকা পাঁচ আসনে দরকার। অত্র-এলাকার সাধারণ মানুষের বিশ্বাস, সর্বোচ্চ যোগ্যতার ভিত্তিতেই কামরুল হাসান রিপনকে নৌকার মনোনয়ন দিবেন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সভানেত্রী এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

ব্যানার-পোস্টার-বিলবোর্ড প্রসঙ্গে কামরুল হাসান রিপন বলেন, ‘আমি মাঠের লোক, কাজের লোক। রাজপথে, দলের দুঃসময়ে আন্দোলন-সংগ্রাম করেই আজ এই অবস্থানে এসেছি। এখন মনে হয় দলের জন্য কাজ করতেই আমার জন্ম। যখনই নেত্রী ডেকেছেন তখনই তার ডাকে সারা দিয়ে ঝাপিয়ে পড়েছি। আমার জীবনে কোন প্রোগ্রাম মিস করার নজীর নেই। ঢাকা-০৫ আসনের আবাল-বৃদ্ধ-বণিতা সকল শ্রেনীর-পেশার মানুষ আমাকে চিনে-জানে। দনিয়া কলেজে পড়ার সময় থেকেই এই এলাকার রাজনীতির সঙ্গে আমি ওতপ্রোতভাবে জড়িত। তাদের বিপদে-আপদে পাশে দাঁড়ানোর চেষ্টা করেছি। ভবিষ্যতেও করে যাবো। তাই তারা আমাকে ভালোবেসেই হয়তো ব্যানার, পোস্টার-বিলবোর্ড করেছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমি কোন কথায় বিশ্বাসী নয় বরং কাজের মাধ্যমেই নিজেকে ফুটিয়ে তুলতে পছন্দ করি। নেত্রী (শেখ হাসিনা) আমাকে মনোনয়ন দিলে নৌকাকে জয়ী করে অত্র এলাকার প্রতিটি ঘরে ঘরে নাগরিক সেবা পৌছে দেওয়ার পাশাপাশি সকল প্রকার সমস্যা সমাধাণ করে আধুনিক, পরিচ্ছন্ন এবং মডেল আসনে রুপান্তরিত করবো ইনশাআল্লাহ।