বিজ্ঞপ্তি
জরুরী ভিত্তিতে সারাদেশে সাংবাদিক নিয়োগ. দেশের জনপ্রিয়  voiceofchandpur.com অনলাইন নিউজ-এ জরুরী ভিত্তিতে বাংলাদেশের প্রতিটি থানায়. একজন থানা প্রতিনিধি ও প্রতি জেলায় একজন জেলা প্রতিনিধি  নিয়োগ দেওয়া হবে। 
বোর্ড ভেঙে দিল সরকার : নিষিদ্ধের পথে দক্ষিণ আফ্রিকার ক্রিকেট!

বোর্ড ভেঙে দিল সরকার : নিষিদ্ধের পথে দক্ষিণ আফ্রিকার ক্রিকেট!

দক্ষিণ আফ্রিকার ক্রিকেট বোর্ড ভেঙ্গে দিয়েছে সে দেশের সরকার। পাশাপাশি সিএসএর বোর্ড সদস্য ও প্রধান নির্বাহীসহ সিনিয়র নির্বাহীদের সরে দাঁড়ানোর নির্দেশ দিয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকান স্পোর্টস কনফেডারেশন অ্যান্ড অলিম্পিক কমিটি (এসএএসসিওসি)। সেই সাথে সিএসএর নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকায় খেলাধুলার সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা এসএএসসিওসি। যা দেশটির প্রধান ক্রীড়া নিয়ন্ত্রক সংস্থা। এ কারণে প্রোটিয়া ক্রিকেট এখন নিষেধাজ্ঞার মুখে পড়ে গেল।

এসএএসসিওসির বোর্ড সভায় মঙ্গলবার সর্বসম্মতিক্রমে এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয় বলে জানিয়েছে ক্রিকেটের জনপ্রিয় ওয়েবসাইট ইসএনপিএনক্রিকইনফো, ক্রিকবাজসহ বেশ কিছু সংবাদমাধ্যম। সিএসএকে পাঠানো চিঠিতে এসএএসসিওসি জানিয়েছে, ক্রিকেট বোর্ডে অনেক অপশাসন ও অপকর্ম চলছে, তাতে ক্রিকেটের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ হয়েছে।

চিঠিতে বলা হয়েছে, সাম্প্রতিক সময়ে দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট বোর্ডের শীর্ষ কর্তাদের কর্মকাণ্ড মোটেও সন্তোষজনক নয়। তাদের অনিয়ম, দুর্নীতি ও অব্যবস্থাপনার কারণে ক্রিকেটের প্রতি আগ্রহ হারাচ্ছে দেশের মানুষ, খেলোয়াড়, স্পন্সর ও সংগঠকরা। এসবের বিররুদ্ধে তদন্ত করতেই দায়িত্ব নিচ্ছে এসএএসসিওসি। কিন্তু এসএএসসিওসির এমন সিদ্ধান্ত মেনে নেয়নি সিএসএ। তারা আইনি পদক্ষেপ নেওয়ার কথা ভাবছে।

এ কারণে বিশ্ব ক্রিকেটে নিষেধাজ্ঞার মুখে পড়তে পারে ক্রিকেট দক্ষিণ আফ্রিকা। কারণ আইসিসির নিয়ম অনুযায়ী, কোনো দেশের ক্রিকেট বোর্ডে সরকার হস্তক্ষেপ করতে পারবে না। আর সেটি যদি করে থাকে, তবে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে নিষিদ্ধ হতে হবে। কিছুদিন আগে জিম্বাবুয়ের ক্রিকেটে একই ঘটনা ঘটেছিল। এখন আইসিসি তদন্ত তরে দেখবে, আইনের পরিপন্থী কিছু হয়েছে কিনা।কিছুদিন আগেই দক্ষিণ আফ্রিকার ক্রিকেটের কোটা প্রথা নিয়ে আইসিসিতে অভিযোগ গেছে। সেটিও তদন্ত করবে আইসিসি।

গত বছর থেকেই সিএসএতে নানারকম অব্যবস্থাপনা ও বিশৃঙ্খলা চলছিল। এ নিয়ে সমালোচনার মুখেই ছিল বোর্ড। দূর্নীতির অভিযোগে গত মাসে বোর্ডের প্রধান নির্বাহীর পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হয় থাবাং মুরকে। এসএএসসিওসি এখন একটি টাস্ক টিম গঠন করবে। সেই টাস্ক টিম বোর্ডের দুর্নীতি নিয়ে তদন্ত করবে। তাদেরকে এক মাসের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিল করতে হবে।এর আগে বর্ণবাদের কারণে ১৯৭০ থেকে ১৯৯১ সালের নভেম্বর পর্যন্ত ২১ বছর আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে নিষিদ্ধ ছিল দক্ষিণ আফ্রিকা।

খবরটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2018 voiceofchandpur.com
Desing & Developed BY DHAKATECH.NET