বিজ্ঞপ্তি
জরুরী ভিত্তিতে সারাদেশে সাংবাদিক নিয়োগ. দেশের জনপ্রিয়  voiceofchandpur.com অনলাইন নিউজ-এ জরুরী ভিত্তিতে বাংলাদেশের প্রতিটি থানায়. একজন থানা প্রতিনিধি ও প্রতি জেলায় একজন জেলা প্রতিনিধি  নিয়োগ দেওয়া হবে। 
এজিএম এবং লাইনম্যানের মহানুভবতায় ঘরে আলো পেল অসহায় দরিদ্র এক নারী

এজিএম এবং লাইনম্যানের মহানুভবতায় ঘরে আলো পেল অসহায় দরিদ্র এক নারী

ঢাকা জেলার ধামরাই উপজেলার চৌহাট ইউনিয়নের মনোহরপুর গ্রামে পল্লিবিদ্যুতের এজিএম এবং লাইনম্যানের মহানুভবতায় আলোকিত হলো (নতুন বিদ্যুৎ সংযোগ পেল) কল্পনি নামে এক অসহায় নারীর ঘর।
ধামরাইয়ের মনোহরপুর গ্রামের এমন সংবাদ শুনে বিডিসমাচার প্রতিনিধি তথ্য সংগ্রহ করতে গেলে জানা যায় একজন এজিএম এবং লাইনম্যানের মহানুভবতার গল্প।
.
ঘরে নতুন বিদ্যুৎ সংযোগ পাওয়া কল্পনি বলেন, আমার স্বামী কয়েকবছর আগে একটি ছেলে রেখে মারা যায়। বর্তমানে ইউনিয়ন পরিষদ থেকে বিভিন্ন ত্রাণ এবং এলাকার লোকজনের সহযোগিতায় চলে সংসার। সংসার কোন রকম চললেও আমার ঘর ছিল বিদ্যুৎহীন পরে স্থানীয় লোকজনের কাছে শুনে আমি স্থানীয় মুন্সিচর পল্লী বিদ্যুৎ অফিসে যাই।
সেখানে গেলে দেখা হয় বিদ্যুৎ অফিসের লাইনম্যান সোয়াইব পাট‌ওয়ারী নামের একজন ভাইয়ের সাথে।
.
লাইনম্যান মোঃ সোয়াইব পাটওয়ারী ভাইকে সমস্যার কথা তুলে ধরলে তিনি আমার থেকে কাগজপত্র নিয়ে অফিসে আবেদন, টাকা জমা সহ আমার ঘর ওয়্যারিং এর মালামাল সবকিছুই উনি নিজেই ক্রয় করে করে স্থানীয় ইলেকট্রিশিয়ান দিয়ে ওয়্যারিং করিয়ে মিটার লাগিয়ে দিয়েছে বিনিময়ে টাকা তো দুরের কথা এক কাপ চাও খাওয়াতে পারিনি।উনার জন্য সবসময় দোয়া করি। আমি একজন গরীব মানুষ আমার জন্য বিদ্যুৎ অফিসের এই ভাই নিজে থেকে এতবড় কাজটি বিনামূল্যে করছে তা সত্যি আমি অবাক।
.
এ বিষয়ে মুন্সিচর পল্লী বিদ্যুৎ অফিসের লাইন ম্যান সোয়াইব পাট‌ওয়ারীর সাথে কথা বললে তিনি বিডিসমাচার কে জানান ভদ্র মহিলা অফিসে আসার পরে ওনার অসহায়ত্বের কথা তুলে ধরলে আমি স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের সাথে কথা বলে ওনার কথার সত্যতা নিশ্চিত হ‌ই। তারপর আমি আমার উর্ধ্বতন কর্মকর্তা কুশুরা জোনাল অফিসের এজিএম ওএন্ড‌এম আলিউল হাসান স্যারের সাথে কথা বললে স্যার আমাকে দিকনির্দেশনা দিয়ে বলে আমি নিরাপত্তা জামানতের টাকা জমা সহ অনুমোদনের ব্যবস্থা করে দিবো আর বাকি আবেদন এবং ওয়্যারিং এর ব্যবস্থা আমাকে করে দিতে তাই আমি স্যারের নির্দেশনা অনুযায়ী কাজ করি এবং ওয়্যারিং এর যাবতীয় মালামাল ক্রয় করলে স্থানীয় ইলেকট্রিশিয়ান সুজন, হৃদয় হোসেন সহ শামীম মিয়া আমাকে বলে তারা নিজ দায়িত্বে বিনামূল্যে ওয়্যারিং সম্পূর্ণ করে দিবে। তাই কাজটি আরো সহজ হয়ে যায় এবং ওয়্যারিং সম্পুর্ন করে দেয়।
.
ভবিষ্যতে যদি এমন কোন অসহায় পরিবার বিদ্যুৎহীন থাকে তাহলে তার জন্যেও আমি সর্বোচ্চ সেবা দিতে প্রস্তুত আছি।
এবিষয়ে বিস্তারিত জানতে কুশুরা জোনের এজিএম (ওএন্ড‌এম) আলিউল হাসান বিডিসমাচার কে বলেন, বিদ্যুৎ বিভাগের স্লোগান শেখ হাসিনা উদ্যোগ, ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ এই স্লোগানকে সামনে রেখে দেশের প্রতিটি ঘরে বিদ্যুৎ সুবিধা পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্যে আমরা সর্বদা কাজ করে যাচ্ছি এমনি একটি ঘটনা আমার অফিসের লাইনম্যান সোয়াইব পাট‌ওয়ারীর মাধ্যমে অসহায় ব্যক্তি কল্পনার বিষয়ে বিস্তারিত জানি যে, ঘরে বিদ্যুৎ ছিল না তার হাতে টাকাও ছিল না আবার কুশুরা জোনালে আসার মতো লোকবল‌ও ছিল না তাই আমি আমার অফিসের লাইনম্যান সোয়াইব পাট‌ওয়ারী কে আমি সকল কাগজপত্র সংগ্রহ করতে বলি এবং আবেদন করে তারপর অফিসের প্রয়োজনীয় কাগজপত্র অনুমোদন করে মিটারের নিরাপত্তা জামানতের টাকা জমা দিয়ে দেই। কুশুরা জোনের এজিএম আরো জানান যে এরকম অসহায় যদি আরো কোন ব্যাক্তি থাকে তাহলে তার বাড়িতেও বিদ্যুৎ সংযোগ দেয়ার জন্য সর্বোচ্চ সহযোগিতা করবো ইনশাআল্লাহ।
.
পরবর্তীতে কল্পনি(ভদ্র মহিলা) বলেন আমি গরিব মানুষ তারা আমার যেই উপকার করছে আমি তাদের কাছে চিরদিন কৃতজ্ঞ থাকবো ।

খবরটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2018 voiceofchandpur.com
Desing & Developed BY DHAKATECH.NET