বিজ্ঞপ্তি
জরুরী ভিত্তিতে সারাদেশে সাংবাদিক নিয়োগ. দেশের জনপ্রিয়  voiceofchandpur.com অনলাইন নিউজ-এ জরুরী ভিত্তিতে বাংলাদেশের প্রতিটি থানায়. একজন থানা প্রতিনিধি ও প্রতি জেলায় একজন জেলা প্রতিনিধি  নিয়োগ দেওয়া হবে। 
সংবাদ শিরোনাম
আমরা বাঙালী, আমাদের মাঝে সকল ধর্মের মানুষ রয়েছে- শিক্ষামন্ত্রী ডা. দিপু মনি ফরিদগঞ্জে সর্ব বৃহৎ আই স্পোর্টস ফুটবল টুর্নামেন্টে খেলার পুরস্কার বিতরণ ফরিদগঞ্জে সর্ব বৃহৎ আই স্পোর্টস ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনাল আজ জেলা প্রশাসক কাপ ফুটবল টুর্ণামেন্ট খেলায় সেমিফাইনালে ফরিদগঞ্জ ফরিদগঞ্জ পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক শাখার অফিসার হাসিবুলের বদলী জনিত বিদায় সংবর্ধনা নিয়োগের ফাইল স্বাক্ষরে কর্মকর্তাদের দিতে হয় টাকা —- প্রধান শিক্ষক আবু তাহের ফরিদগঞ্জে উপজেলা ও পৌর ছাত্রলীগের আয়োজনে প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন পালন ফরিদগঞ্জে কর্মচারি নিয়োগে বানিজ্য: কর্মকর্তারা ফাইল স্বাক্ষরে নেয় টাকা ফরিদগঞ্জের সন্তোষপুর গ্রামে সরকারি রাস্তা দখল ইএএলজি প্রকল্পের আওতায় হাইমচরে দক্ষিণ ইউনিয়ন পরিষদে গনশুনানী অনুষ্ঠিত
ড্রাগন চাষে সফল ব্যবসায়ী ফরিদগঞ্জের মোজাম্মেল

ড্রাগন চাষে সফল ব্যবসায়ী ফরিদগঞ্জের মোজাম্মেল

 

মামুন হোসাইনঃ
নানা গুন সমৃদ্ধ ড্রাগন ফল বানিজ্যিকভাবে চাষ করে ব্যপক সফলতা পেয়েছেন বালিথুবা পশ্চিম ইউনিয়ন লোহাগড় গ্রামের মোজাম্মেল হক তালুকদার নামে এক ব্যবসায়ী।

বর্তমানে তার বাগানের প্রতিটি গাছে শোভা পাচ্ছে লাল রংয়ের ড্রাগন ফল।
রোগ-বালাই কম হওয়ার পাশাপাশি চাষ পদ্বতি সহজ হওয়ায় এবং বাজারে ভালো চাহিদা থাকায় বিদেশি এ ফল চাষে এরইমধ্যে আগ্রহ প্রকাশ করতেছে আশপাশের চাষিরা।অনেকেই জানতে চাইছেন, কিভাবে অল্প সময়ে ফলন আনতে সক্ষম হয়েছি আমরা।

স্থানীয় বাসিন্দা কবি কাশেম জানান,
ড্রাগন ক্ষেতটি খুব সুন্দর ও পরিপাটি। প্রতিটি গাছেই ফল ধরেছে। এছাড়া ড্রাগন ফলের দামও বাজারে বেশ ভালো পাওয়া যায়। এজন্য তিনিও ভাবছেন কিভাবে এটার আবাদ শুরু করবেন।

বাগান মালিক মোজাম্মেল হক তালুকদার
জানান, ইউটিউব থেকে ড্রাগন চাষ করার নিয়ম কানুন শিখে তার ভাগিনা ঢাকায় ড্রাগন চাষ করে,সেখান থেকেই তিনি ড্রাগন চারা সংগ্রহ করেন। এবং বরগুনা থেকে কিছু চারা সংগ্রহ করেন।এরপর ফরিদগঞ্জ উপজেলার বালিথুবা পশ্চিম ইউনিয়ন লোহাগড় গ্রামে তার নিজ এলাকায় ১ একর জমিতে বেড তৈরি করে ৭০০ ড্রাগন চারা রোপণ করেন। বেড তৈরি থেকে শুরু করে চারা রোপন ও গাছের পরিচর্যায় এ পর্যন্ত তার প্রায় ৭ লক্ষ লাখ টাকারও বেশি খরচ হয়েছে। তার বাগানে লাল, সাদা ২ প্রকারের ড্রাগন চারা রোপন করেছেন। বর্তমানে প্রতিটা গাছে ড্রাগন ফল ধরেছে। পর্যায়ক্রমে ফলন আরও বৃদ্ধি পাবে বলেও আশা করছেন তিনি।

সৌখিন এ চাষি আরও বলেন, ইতমধ্যে আমার বাগানের ড্রাগন ফল বাজারজাত করা শুরু হয়েছে। বর্তমানে বাজারে মৌসুমে ফল ভরপুর থাকায় প্রতি কেজি ড্রাগন পাইকারি ২৫০ থেকে ৩০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

ফরিদগঞ্জ উপজেলার বালিথুবা পশ্চিম ইউনিয়নের দায়িত্বরত সাজ্জাতুল ইমরান বলেন, বর্তমানে আমাদের দেশে ড্রাগনের চাষ শুরু হয়েছে। পুষ্টিগুনে সমৃদ্ধ ড্রাগনে প্রচুর পরিমাণ ভিটামিন সি, মিনারেল রয়েছে। একটি ড্রাগন ফলে ৬০ ক্যালোরি পর্যন্ত শক্তি এবং প্রচুর ম্যাগনেসিয়াম, বিটাক্যারোটিন ও লাইকোপিনের মতো অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট রয়েছে। ডায়াবেটিস ও ক্যানসার প্রতিরোধে ড্রাগন ফল খুবই কার্যকরী।

তিনি আরও বলেন, মাঠ পর্যায়ে কৃষক ও খামারীদের বিদেশি ফল চাষের ব্যাপারে আগ্রহী করে তুলতে পারলে একদিকে যেমন বিদেশি ফলের আমদানী নির্ভরতা কমে আসবে অন্যদিকে ফল চাষ করে কৃষকরা লাভবান হতে পারবেন। এছাড়া নতুন কর্মসংস্থানও সৃষ্টি হবে।

খবরটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2018 voiceofchandpur.com
Desing & Developed BY DHAKATECH.NET